১৭ই মার্চে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ

0
549

১৭ই মার্চ-২০২১, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীনতার মহান স্থপতি, বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান- এর ১০১ তম জন্মদিন, ঐতিহাসিক ‘মুজিববর্ষ’ এবং জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে ময়মনসিংহ বাসীর আশার বাতিঘর, আধুনিক নগর গড়ার দক্ষ কারিগর, ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র জনাব মোঃ ইকরামুল হক টিটু’র উপস্থিতিতে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগ এর পরিশ্রমী ও মেধাবী ছাত্রনেতা তানভীর যোবায়ের ইসলাম তারিনের নেতৃত্বে ময়মনসিংহের ব্রীজ মোড়ে অবস্থিত মহান মুক্তিযুদ্ধের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস ও জাতির পিতার প্রতিকৃতি সম্বলিত নান্দনিক “জয় বাংলা চত্বরে” জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধার্ঘ্য ও পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগ।

শুরুতে বাঙালি জাতির মহান নেতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় পিতার প্রতিকৃতির সামনে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয় এবং পরবর্তীতে জাতির পিতার প্রতিকৃতির সামনে বিভিন্ন স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করে জাতির পিতাকে স্মরণ করেন ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীবৃন্দ।

১৭ ই মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন, মুজিব জন্মশতবর্ষ ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগ নেতা তানভীর যোবায়ের ইসলাম তারিন বলেন,

১৯২০ সালের ১৭ই মার্চ গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া গ্রামে জন্ম নেওয়া সকলের আদরের খোকা তার নেতৃত্বগুণে ও দক্ষতায় দীর্ঘ লড়াই সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হয়ে উঠেন এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব থেকে তিনি বাঙালি জাতির পিতা রূপে আবির্ভূত হন | বায়ান্নোর ভাষা আন্দোলন থেকে একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ পর্যন্ত প্রতিটি লড়াই সংগ্রামে জাতিকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণের মাধ্যমে জাতিকে স্বাধীনতার একটি পূর্ণাঙ্গ দিকনির্দেশনা দিয়েছিলেন | জীবনের যৌবন তিনি কারাগারেই কাটিয়েছেন | তিনি সর্বমোট ৪৬৮২ দিন কারাগারের অন্ধকার প্রকোষ্ঠে কাটিয়েছেন যা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল | তার অসংখ্য ত্যাগ তিতিক্ষার মাধ্যমেই বাঙালি জাতি পেয়েছে স্বাধীন একটি রাষ্ট্র | যে মহান নেতার এতকিছু বিসর্জনের মাধ্যমে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ পেলাম তার জন্মদিনে তার প্রতি জানাই অবনত মস্তকে বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালবাসা।

তিনি আরো বলেন, আমরা তরুণ প্রজন্ম যারা বঙ্গবন্ধুকে দেখিনি তাদের উচিত বিভিন্ন বই পড়ে তার সম্পর্কে ভালভাবে জেনে তার আদর্শ বুকে ধারণ করে আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মানে কাজ করে যাওয়া |

আমি বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও যৌবনের উত্তাপে গড়া শুদ্ধ সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একজন কর্মী হতে পেরে নিজেকে সবসময় গর্বিত মনে করি |

মন্তব্য করুন