ঢামেকে চিকিৎসক ধর্মঘট দিনভর রোগীদের ভোগান্তি

0
759

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) এক রোগীর মৃত্যু ঘটনায় স্বজনদের হামলার জেরে জরুরি বিভাগ এবং বহির্বিভাগের (আউটডোর) চিকিৎসা সেবা বন্ধ করে বিােভ কর্মসূচি পালন করছেন ইন্টার্নি চিকিৎসকরা। ফলে প্রচন্ড দুর্ভোগের মুখে পড়েছেন রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে চিকিৎসা নিতে আসা শত শত রোগী ও অভিভাবক। জিম্মি হয়ে পড়েছে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা এসব অসহায় রোগী ও অভিভাবকরা। : প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে হাসপাতালের বহির্বিভাগ চিকিৎসা সেবা বন্ধ করে দিয়েছে শিানবিস চিকিৎসকরা। এর আগে গত সোমবার সকাল ৯টার পর থেকেই বহির্বিভাগের গেট বন্ধ করে দেয়া হয়। টানা দুই দিনের ধর্মঘট এবং বিােভের ফলে চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম মারাত্মকভাবে ব্যাহত হয়েছে। বিােভকারী চিকিৎসকদের নিরাপত্তা দাবি ও চিকিৎসকদের উপর হামলার ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি জানিয়ে শ্লোগান দেন। এই বিােভে ঢাকা মেডিকেল কলেজের প্রায় ৩ শতাধিক শিানবিস চিকিৎসক অংশগ্রহণ করেন। চিকিৎসকরা জরুরি এবং বহির্বিভাগের সেবা বন্ধ করে বিােভ করছেন। হাসপাতালে বহির্বিভাগ বন্ধ থাকায় দেশের দূর-দূরান্ত থেকে চিকিৎসা নিতে আসা অনেক রোগীকে দুর্ভোগ পোহাতে দেখা যায়। এই হাসপাতালের টিকিট কাউটার, ভর্তি কাউন্টার ও ডাক্তারের চেম্বারসহ সব কিছু বন্ধ রেখে বিােভের কারণে হাসপাতালে সেবা নিতে আসরা রোগীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। বিােভ ও কর্মবিরতির কারণে মেডিকেলের জরুরি বিভাগে ঢুকতে পারছেন না রোগীরা। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান, সকালে চিকিৎসক ও নার্সরা বিােভ করছেন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করছেন তারা। গতকাল সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত অপেক্ষা করেও ডাক্তারের দেখা পানানি শত শত রোগী ও অভিভাবক। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা জটিল ও কঠিন রোগাক্রান্ত অসহায় রোগী ও অভিভাবক এসেছিলেন ডাক্তার দেখানোর জন্য। এর মধ্যে অনেক পুরনো রোগীকে নির্ধারিত তারিখে নির্ধারিত সময়ে ডাক্তার দেখানোর কথা ছিল। সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালের বহির্বিভাগের নির্ধারিত টিকিটে ডাক্তার দেখানো এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষা সংক্রান্ত সেবামূলক কার্যক্রম পরিচালিত হয়। কিন্তু গতকাল দুপুর ২টা পর্যন্ত এই হাসপাতালের বহির্বিভাগের গেট তালাবদ্ধ ছিল। কখন খুলবে হাসপাতালের গেট! কখন মিলবে ডাক্তার! অপোর প্রহর গুনতে হয় কেন চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রোগী এবং অভিভাবকরা। এভাবে গেটের বাইরে অপেক্ষা করতে করতে বেশ কয়জন রোগী প্রচন্ড ব্যথায় জ্ঞান হারায় অনেকে। : উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠার মধ্যে প্রচন্ড রোদের ভেতর মাটিতে বসে থেকে অনেকে শরীরের ঘাম ঝরাচ্ছেন। এমন এক অসহায় সত্তরোর্ধ্ব বৃদ্ধ খায়রুন্নেসা। বহুবার অনুরোধ করেও হাসপাতালের ভেতর ঢুকতে পারেননি তিনি। বয়সের ভারে নুয়ে পড়া শরীর আর কিডনির ব্যথায় কাতরাচ্ছিলেন। তার মেয়ে শিউলিকে ধরে সকাল থেকে বসেছিলেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বহির্বিভাগের গেটের সামনে। অসুস্থ মাকে নিয়ে দৌড়াদৌড়ি করতে করতেই মেয়ে শিউলি বলছিল, ওরা এত পাষাণ! সকাল থেকে বসে আছি। গেটের কাছেই যেতে দিল না। রোগীদের জিম্মি করে এ কেমন আন্দোলন! কিডনি রোগে আক্রান্ত এই বৃদ্ধার অপোর প্রহর গুনতে গুনতেই এক সময় জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। বৃদ্ধ মায়ের জ্ঞান হারানোর ঘটনায় দিশেহারা হয়ে পড়েন মেয়ে শিউলি। শিউলি চিৎকার আর দিগি¦দিক ছোটাছুটি করতে থাকেন। : এমন মর্মান্তিক ঘটনার পরেও বৃদ্ধ খায়রুন্নেসার জন্য হাসপাতালের বহির্বিভাগের গেট খুলে দেয়া হয়নি। পরে আশপাশের লোকজন এসে খায়রুন্নেসাকে উদ্ধার করে জরুরি বিভাগে নিয়ে যায়। সেখানেও চলছে শিক্ষানবিস ডাক্তার ও নার্সদের ধর্মঘট। এই খায়রুন্নেসার মতো আরো অনেক রোগী জরুরি বিভাগে গিয়েও চিকিৎসা সেবা পাননি। : এদিকে গতকাল দুপুরের পর ঢাকা মেডিকেল কলেজে ইন্টার্নি ডাক্তারদের চলমান আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। ঢাকা মেডিকেল কলেজের হাসপাতালের শিানবিস চিকিৎসকদের সংগঠনের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক সাংবাদিকদের বলেন, ডাক্তারদের ওপর হামলার প্রতিবাদে আমাদের বিােভ কর্মসূচি চলছিল। পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত আন্দোলন কর্মসূচি আপাতত স্থগিত করা হয়েছে। : উল্লেখ্য, শনিবার রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত পুরান ঢাকার নওশাদ আহমেদকে হাসপাতাল ভবন-২-এর করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি করা হয়। পরদিন রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তিনি মারা যান। এ নিয়ে রোগীর স্বজন ও চিকিৎসকদের তর্ক হয়। একপর্যায়ে স্বজনরা চিকিৎসকদের ওপর চড়াও হন। এতে চিকিৎসক ও আনসার সদস্যদের পাল্টা হামলার শিকার হন রোগীর স্বজনরা। কিন্তু ওইদিন ঘটনায় রোগীর দুই স্বজনকে পুলিশের হাতে তুলে দেয় হাসপাতাল কর্তৃপ। এর পর হাসপাতাল কর্তৃপ আরও তিনজনকে আটকের দাবি জানায়। ওই হামলার ঘটনায় রোগীর ৪ স্বজনসহ মোট ৭ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। এরই মধ্যে রোগীর ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদিকে ওই ঘটনার পর বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন। এ ছাড়া ঘটনার তদন্তে গঠন করা হয় পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি।

দিনকাল রিপোর্ট

মন্তব্য করুন