সৈয়দা সেলিমা অাজাদ সমাজ উন্নয়নে অসমান্য অবদান রাখায় শ্রেষ্ঠ জয়িতা নির্বাচিত

0
1276

স্টাফ রিপোর্টার : “জয়িতা তোমরাই বাংলাদেশের বাতিঘর” জয়িতা অন্বেষনে বাংলাদেশ. বেগম রোকেয়া দিবস-২০১৭ উপলক্ষে গত শনিবার জেলা পরিষদের ভাষা শহীদ অাব্দুল জব্বার মিলনায়তনেে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের যৌথ অায়োজনে এবং জেলা পরিষদের সহযোগিতায় জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়।

ময়মনসিংহের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) মো:মোহসীন উদ্দীনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো.খলিলুর রহমান,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান,জেলা সিভিল সার্জন ডা.এ কে অাবদুর রব,জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা দিলখোশ বেগম সহ বিভিন্ন সংস্হার কর্মকর্তাবৃন্দ।

তৃনমূল পর্যায় থেকে সার্চ কমিটির মাধ্যমে বাছাইয়ের মাধ্যমে জেলা পর্যায়ে সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রেখেছেন যে নারী..এই ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠ জয়িতা নির্বাচিত হয়েছেন সৈয়দা সেলিমা অাজাদ। বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ময়মনসিংহের সর্বজনখ্যাত সমাজকর্মী সৈয়দা সেলিমা অাজাদ একাধারে সফল নারী উদ্যোক্তা,বেকার নারীদেরকে প্রশিক্ষিত করে অাত্মকর্মসংস্হানের প্রবক্তা, পরিবেশ অান্দোলনের অগ্রপথিক, বাল্যবিবাহ নিরোধ ও মাদকমুক্ত সমাজ প্রচারিভাযানের অন্যতম পথপ্রদর্শক।

শত প্রতিকূলতার মাঝেও নিজের একক প্রচেষ্টায় সন্তানদের উচ্চশিক্ষিত করার পাশাপাশি নিজেকে অনন্য উচ্চতায় অধিষ্ঠিত করেছেন তার নারীবান্ধব ও জনমুখী কর্মকান্ডের মাধ্যমে।ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্সের সদস্য সৈয়দা সেলিমা অাজাদ তার নিজের প্রতিষ্ঠিত গোধূলি নারী কল্যান সংস্হা ও গোধূলি সিবিপির পাশাপাশি অসংখ্য সামাজিক প্রতিষ্ঠান ও উন্নয়ন সংস্হার সাথে যুক্ত রয়েছেন।উল্লেখযোগ্য সংগঠনগুলোর মধ্যে ময়মনসিংহ উন্নয়ন সংঘ(মউস) এর নির্বাহী পরিচালক,অাই ই ডি নারী ফোরামের সভাপতি,সম্মিলিত সামাজিক অান্দোলনের কার্য্যকরী সদস্য,পরিবেশ রক্ষা ও উন্নয়ন অান্দোলনের (পরউঅা) কার্য্যকরী সদস্য,সুশাসনের জন্য প্রচারিভিযানের(সুপ্র) কার্যকরী সদস্য,বৃহত্তর ময়মনসিংহ ক্লাইমেন্ট চেঞ্জ নেটওয়ার্কের সদস্য ও জেলা নারী উদ্যোক্তা ফোরামের অন্যতম সদস্য হিসেবে তিনি কার্য্যকরী ভূমিকা পালন করেছেন।

গোধূলি নারী কল্যান সংস্হার কলমীলতা,সূর্যমুখী, উদয়ানন্দ সহ বিভিন্ন নামীয় অনেকগুলি নারী গ্রুপের মাধ্যমে তিনি ময়মনসিংহ মহানগর ও সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে হস্তশিল্প,ব্লক-বাটিক,পাটপণ্য তৈরি,পিঠা তৈরি,সবজি চাষ সহ বিভিন্ন অায়বর্ধক প্রশিক্ষণ কর্মসূচী তিনি পরিচালনা করার পাশাপাশি উঠোন বৈঠকের মাধ্যমে বাল্যবিবাহ ও মাদকের বিরুদ্ধে প্রচারাভিযান তিনি অব্যাহত রেখেছেন,যে নেটওয়ার্কের সাথে প্রায় সহস্রাধিক নারী যুক্ত রয়েছেন।

এছাড়াও স্বাবলম্বী উন্নয়ন সংস্হায় প্রশিক্ষক হিসেবে রেস্টোরেটিভ জাস্টিস এর মাধ্যমে দ্বন্দ্ব নিরসনেও তিনি কাজ করছেন। বিরল প্রতিভার অধিকারী এই সফল নারীউদ্যোক্তা একজন লব্ধপ্রতিষ্ঠ কবি ও লেখক হিসেবেও সুপরিচিত।অসহায় নির্যাতিত নারীদেরকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তিনি অাত্মকর্মসংস্হানের ব্যবস্হাসহ ময়মনসিংহের পরিবেশ রক্ষা, পলিথিনবিরোধী অান্দোলন,নারী নির্যাতন-যৌতুকবিরোধী অান্দোলন,ভেজাল পন্যবিরোধী অান্দোলনসহ প্রতিটি প্রগতিশীল সামাজিক-সাংস্কৃতিক অান্দোলনের সাথে তিনি ওতপ্রোতভাবে জড়িত রয়েছেন।

অসংখ্য জয়িতা গড়ার কারিগর জয়িতাদের জয়িতাখ্যাত এই কর্মউদ্যোগী নারী সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখায় জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ জয়িতা ক্যাটাগরিতে নির্বাচিত হওয়ার পর তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন,অামি পুরস্কারের কথা ভেবে কোন কাজ করিনি,তবে অাজকের এই স্বীকৃতি অামাকে নবউদ্যমে কাজ করার অনুপ্রেরণা যোগাবে।

নারীসমাজের উন্নয়ন তথা সমাজের পিছিয়ে পড়া নারী জনগোষ্ঠীকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সমাজের মূলধারায় অন্তর্ভূক্ত করে অাত্মকর্মী হিসেবে গড়ে তুলে এসডিজি অর্জনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে সরকারের অাহবানে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করাই অামার লক্ষ্য।উল্লেখ্য জয়িতাদের সংবর্ধনায় সরকারী-বেসরকারী বিভিন্ন সংস্হার কর্মকর্তাবৃন্দ,প্রাক্তন জয়িতাগণ ও অনুষ্ঠানে অাগত বিভিন্ন নারী সংস্হার বিপুলসংখ্যক নারী নেতৃবৃন্দ জয়িতা সৈয়দা সেলিমা অাজাদের কর্মকান্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

মন্তব্য করুন