ইউপি সদস্য ও প্রবাসীকে কুপিয়ে জখম

0
1009

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার ৬নং টিকিকাটা ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ইসমাইল হোসেন খান ও দুবাই প্রবাসী মহিবুল্লাহকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) রাতে ইউনিয়নের বাইশকুড়া বাজারে তাদের উপর এই হামলা হয়। মঠবাড়িয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বিকাশ চন্দ্র দে এ তথ্য জানান।

আহত ইউপি সদস্যের দাবি, জুয়া খেলা ও মাদক সেবনে বাধা দেওয়ায় মাদকসেবীরা তাদের উপর হামলা চালায়। তবে পুলিশের দাবি, রাজনৈতিক কারণে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে।

আহত প্রবাসী মহিবুল্লাহর ছোট ভাই আমানউল্লাহ জানান, বৃহস্পতিবার রাতে ইউপি সদস্য ইসমাইল হোসেন খান ও প্রবাসী মহিবুল্লাহসহ কয়েকজন বাইশকুড়া বাজারে ইউসুফ মল্লিকের দোকানের সামনে গল্প করছিল। এসময় স্থানীয় শামীম, জুয়েল, নান্টু, রাসেল ও আল-আমিনসহ ১০-১২ জনের একটি দল ধারালো অস্ত্র নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়। অস্ত্রের কোপে ইসমাইল খানের ডান পায়ের ৩টি আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন ও প্রবাসী মহিবুল্লাহর ডান হাঁটুসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ গুরুতর জখম হয়।

টিকিকাটা ইউপি চেয়ারম্যান ও মঠবাড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম রিপন জানান, ইউনিয়নের উত্তর ভেচকী গ্রামের বাসিন্দা শামীমের বাইশকুড়া বাজারে একটি দোকান রয়েছে। এই দোকানের পিছনে ক্যারমবোর্ড খেলা হত টাকার বিনিময়ে। এ ছাড়া শামীম সেখানে ইয়াবার ব্যবসা করতো ও সেবন করতো। ইউপি সদস্য ইসমাইল হোসেন বিষয়টি পুলিশকে জানালে পুলিশ বাজার থেকে ক্যারমবোর্ড নিয়ে যায়। এতে মাদকসেবীরা তার উপর ক্ষিপ্ত হয়। এছাড়া দুবাই প্রবাসী মহিবুল্লার কাছে একাধিক মামলার আসামি নান্টু ১ লাখ টাকা চাঁদা চেয়েছিল। কিন্তু সে টাকা দেয়নি। এসব কারণে তাদের দুইজনকে কোপানো হয়।

তবে এসআই বিকাশ চন্দ্র দে জানান, রাজনৈতিক কোন্দলের জের ধরে এ হামলার ঘটনাটি ঘটেছে।

তিনি আরও জানান, হামলার খবর পেয়ে এলাকায় অভিযান চালানো হয়েছে। তবে কাউকে এখনও আটক করা যায়নি।

মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. সৌমিত্র সিনহা রায় জানান,আহতদের জখমের অবস্থা খুবই গুরুতর। ইউপি সদস্য ইসমাইল হোসেন খানের পায়ের জখমের কারণে তার স্বাভাবিক চলাচল ব্যাহত হতে পারে।

মঠবাড়িয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাজহারুল আমিন জানান, এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য করুন