বঙ্গবন্ধু ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর স্বীকৃতি-ময়মনসিংহে আনন্দ র‌্যালী

0
1529

স্টাফ রিপোটার : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর বিশ্বপ্রামাণ্য ঐতিহ্য’র স্বীকৃতি লাভের অসামান্য অর্জন উপলক্ষে ময়মনসিংহে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্বক অর্পণ ও বিশাল আনন্দ শোভাযাত্রা করেছে জেলা প্রশাসন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান,ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার জি এম সালেহ উদ্দিন, পুলিশের ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি, জেলা প্রশাসক (ডিসি) খলিলুর রহমান, ময়মনসিংহ র‌্যাব-১৪’র কমান্ডিং অফিসার লে. কর্ণেল শরীফুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট জহিরুল হক খোকা, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড.জহিরুল হক খোকা বলেন, ৭১ সালে জাতির পিতার ডাকে দেশ স্বাধীনতার লাভ করেছে। এ ভাষণ আমাদের অহংকার। সারা বাংলার মানুষের অহংকার। এ ভাষণ মধ্যে এদেশের মানুষ ঝাপিয়ে পড়েছিল পাকিস্তানি হানাদারদের উপর। যুদ্ধ করে স্বাধীনতা লাভ করে আজ সোনার বাংলাদেশ। বর্তমানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হাতকে শক্তিশালী করতে আগামী নির্বাচনে নেীকা মার্কায় ভোট দিয়ে উন্নয়ন ধারাবাহিতা ধরে রাখান আহŸান জানান। তিনি জাতির পিতার ভাষণ ‘ওয়ার্ল্ডস ডকুমেন্টারি হেরিটেজ’ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ায় ইউনেস্কেকে ময়মনসিংহের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান।

জেলা প্রশাসক (ডিসি) খলিলুর রহমান অতিথিদের নিয়ে প্রথমে সার্কিট হাউজ মাঠের উত্তর অংশে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্বক অর্পণ করেন।

পরে নগরীর সার্কিট হাউজ মাঠ থেকে বের হওয়া আনন্দ শোভাযাত্রাটি নগরীর জিলা স্কুল মোড়, নতুন বাজার, গাঙ্গিনারপাড় মোড় ঘুরে নগরীর রেলওয়ে কৃষ্ণচুড়া এলাকায় গিয়ে শেষ হয়। ঢাক-ঢোল, ব্যান্ড পার্টি আর শ্লোগানে শ্লোগানে স্কুল , কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী. রাজনৈতিক, সামাজিক, সংস্কৃতিক অঙ্গনের সমাগমে ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী সার্কিট হাউজ ময়দান হয়ে উঠে আনন্দের জনসমুদ্রে।

শোভাযাত্রায় নগরীর ৪৮ টি স্কুল-কলেজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীরা অংশ নেন।

মন্তব্য করুন