জনসভা বয়কট করলেন আওয়ামীলীগ নেতারা

0
1058

অটো রিক্সা ও বিভিন্ন যানবাহনে লোকজন জমায়েত করে নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার মাসকা বাজারে শনিবার বিকালে অনুষ্ঠিত হয় আওয়ামীলীগ দলীয় এমপি ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টুর ডাকে জনসভা।

তবে এমপি পিন্টুর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে ওই জনসভা বয়কট করলেন উপজেলা আওয়ামীলীগ ও বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতারা।

মাসকা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুর রহমান খান পাঠানের সভাপতিত্বে আওয়ামীলীগের জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন নেত্রকোনা-৩ আসনের এমপি ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টু।

এতে বক্তব্য রাখেন মাসকা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুস ছালাম বাঙ্গালী, গড়াডোবা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান খান সোহাগ, পাইকুরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান আরজু, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম জুয়ে, মাসকা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বারী ভূঞা বকুলসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতারা।

তবে জনসভা বয়কট করেছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ নূরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মোজাফরপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর চৌধুরী, পৌর মেয়র আওয়ামীলীগ নেতা আসাদুল হক ভূঞা পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি কামরুল হাসান ভূঞা গন্ডা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান সাজেদুল ইসলাম সঞ্জু, সান্দিকোণা ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল ইসলাম, দলপা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মতিউর রহমান আশুজিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মঞ্জুর আলী, বলাই শিমূল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুর রহিম ও মোজাফরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি দিদারুল ইসলামসহ আরও অনেকেই।

জনসভা কেন বয়কট করলেন এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর চৌধুরীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, যে এমপি বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে নিয়ে তীব্র সমালোচনা করে এবং গত ১৫ই আগষ্টের জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচীতে উপজেলা সদরে থেকেও অংশগ্রহণ করেননি, তার জনসভায় আমরা যারা প্রকৃত বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক তারা যোগ দিতে পারিনি।

তাছাড়া এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর বিগত দিনে এক দিনের জন্যেও দলীয় কার্যালয়ে যাননি, এমনকি কিভাবে দল চলে তার খোজ-খবরও নেননি। সেজন্যই জনসভা বয়কট করেছি। এমপির নিজ ইউনিয়ন বলাই শিমূল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম বলেন এমপি পিন্টু নিজ দলের লোকদের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ রাখেননি। গুটিকতক লোক নিয়ে তিনি চলেন। বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমাদের ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে কাজ না করে তিনি নীরব ভূমিকা পালন করেন। এর ফলে ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতি আলী আকবর তালুকদার মল্লিক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে ত্রাণের চাল কালোবাজারে বিক্রির মামলায় বর্তমানে জেল-হাজতে রয়েছেন। এজন্যই আমরা বলাইশিমূল ইউনিয়নের লোকজন এমপি পিন্টুর জনসভায় যোগ দেইনি।

এ ব্যাপারে এমপি ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টুর সঙ্গে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য করুন