স্কুলছাত্রী অপহরণের সময় ৬ যুবক আটক

0
1406

জামালপুর সদর উপজেলার রানাগাছা ইউনিয়নের নান্দিনা বাজার এলাকায় মাইক্রোবাসে করে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার সময় সদরের তুলসীপুর বাজার এলাকায় জনতার হাতে আটক হয়েছে ছয়জন যুবক। এ ঘটনা ঘটে গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে। উত্তেজিত জনতা মাইক্রোবাসটি ভাঙচুর করেছে। নারায়ণপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার এবং ওই যুবকদের আটক করেছে। তাদের বিরুদ্ধে জামালপুর সদর থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

আটক যুবকেরা হলেন- জামালপুর সদর উপজেলার লক্ষীরচর ইউনিয়নের রুবেল (২২) ও মোতালেব (২২), রানাগাছা ইউনিয়নের নান্দিনা গেইটপাড় এলাকার তারেক (২৪), হাবিবুর রহমান সোহাগ (২১) ও ইমরান হোসেন (২১) এবং খড়খড়িয়া এলাকার আলম হোসেন (২৪ )।

ওই ছাত্রীর পারিবারিক সূত্রে জানা, ওই ছাত্রী সকালে নান্দিনা বাজার এলাকায় তার ব্যক্তিগত পাঠ নিতে শিক্ষকের বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর রুবেল তাকে পেছন থেকে ডাক দেয়। তাতে সাড়া না দেওয়ায় ওই যুবকেরা তাকে মাইক্রোবাসে (ঢাকা মেট্রো-গ ১১-১৯৩১) উঠিয়ে জোরপূর্বক তুলসীপুরের দিকে যেতে থাকে। এ সময় ছাত্রীর বান্ধবীরা বিদ্যালয়ে গিয়ে বিষয়টি জানায়। এ নিয়ে ওই ছাত্রীর আত্মীয়-স্বজন তার সন্ধানে বিভিন্ন জায়গায় ফোন করেন। তারা পুলিশকেও জানান। এর কিছুক্ষণ পর অপহরণকারী ওই যুবকেরা মাইক্রোবাস নিয়ে সদর উপজেলার তুলসীপুর বাজারে পৌঁছুলে স্থানীয় লোকজন মাইক্রোবাসটি ঘিরে ফেলে। স্থানীয় উত্তেজিত জনতা মাইক্রোবাস থেকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে এবং ওই যুবকদের আটক করে। এক পর্যায়ে উত্তেজিত জনতা মাইক্রোবাসে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে।

পরে স্থানীয়রা নারায়ণপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে খবর দেয়। তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক (এসআই) জসিম উদ্দিন ও এসআই আব্দুল আলিম পুলিশ সদস্যদের নিয়ে তুলসীপুর বাজারে গিয়ে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করেন। পরে পুলিশের দলটি ওই যুবকদের আটক করে তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে যায়।

ওই ছাত্রী বলেছে, সে নান্দিনা নেকজাহান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে নবম শ্রেণিতে পড়ে। দীর্ঘদিন ধরেই রুবেল ও তার সহযোগীরা তাকে উত্যক্ত করে আসছিল।

নারায়ণপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক (এসআই) জসিম উদ্দিন বলেছেন, ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে তার বাবা-মাকে জানানো হয়। অপহরণের কাজে ব্যবহৃত মাইক্রোবাসটি জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ওই ছয় যুবককে আসামি করে জামালপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মন্তব্য করুন