শেরপুরে “রাজনীতিতে তরুণ নেতৃত্বের বিকাশ শীর্ষক” গোলটেবিল বৈঠক

0
838

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের উদ্যোগে সোমবার শেরপুরে ‘শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের লক্ষ্যে তরুণ নেতৃত্বের বিকাশ ও অংশগ্রহণ’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল ফেলোশীপ এলামনাই এসোসিয়েশনের উদ্যোগে শহরের নিপুন কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত এই গোলটেবিল বৈঠকে তরুণ নেতৃত্ব বিকাশের জন্য সারাদেশের কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ছাত্র সংসদ নির্বাচন দরকার বলে অংশগ্রহণকারীরা তাদের অভিমত ব্যক্ত করেন।

সেইসাথে বৈঠকে বক্তারা বলেন, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে নিয়মিত ছাত্র সংসদ নির্বাচনের মধ্যদিয়েই রাজনীতিতে তরুণ নেতৃত্বের বিকাশ ঘটে। দীর্ঘদিন ধরে এইসব ছাত্র সংসদ নির্বাচন না হওয়ায় রাজনীতিতে স্হবিরতা ও মেধাবী নেতৃত্বের সংকট চলছে। মেধাবী শিক্ষার্থীরা রাজনীতি বিমুখ হয়ে পড়ছে। যার কারণে ছাত্র রাজনীতিতে টেন্ডারবাজ, দখলবাজ,লেজুড়বৃত্তি, সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত ক্যাডাররাও ঢুকে পড়ছে।

প্যানেল বক্তারা অভিমত দেন,মেধাবী তরুণরা নেতৃত্বে আসলে রাজনীতিতে অস্ত্রের ঝনঝনানি থাকবে না,ইতিবাচক রাজনীতি চর্চার প্রতিফলন ঘটবে। উপর্যুক্ত গোলটেবিল বৈঠকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ শেরপুর জেলা শাখার সভাপতি ও সরকার দলীয় হুইপ আতিউর রহমান আতিক এমপি প্রধান অতিথি এবং জেলা বিএনপি’র সভাপতি সাবেক এমপি মাহমুদুল হক রুবেল বিশেষ অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের সিনিয়র রিজিউনাল কো-অর্ডিনেটর নার্গিস আক্তার মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

এতে দলের নির্বাহী কমিটিগুলোতে তরুণ নেতৃত্বের সংখ্যা বৃদ্ধি, নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে আরো বেশী সংখ্যক তরুণ নেতাদের মনোনয়ন দান, ছাত্র ও যুব কমিটিগুলো আরও শক্তিশালী করার সুপারিশ করা হয়। প্রধান অতিথি জাতীয় সংসদের হুইপ আতিউর রহমান আতিক এমপি তার বক্তব্যে বলেন, তথ্য প্রযুক্তির বিকাশের কারণে আগামীতে তরুণরাই সকল ক্ষেত্রে নেতৃত্ব দেবে। এক্ষেত্রে মেধাবী ও য়োগ্যরাই কমিটিগুলোতে স্থান পাবে।

তিনি নিজের জীবনের বাস্তব অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে বলেন, কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি থেকে ধাপে ধাপে উপজেলা চেয়ারম্যান, পর পর ৪ বার সংসদ সদস্য হয়ে আজ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি- জাতীয় সংসদের হুইপ হয়েছি। গণতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির ধারা অব্যাহত রাখার জন্য তিনি কলেজ ছাত্র সংসদের নির্বাচনের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরে বলেন, আজকের এই অবস্থার জন্য বিএনপি-আ’লীগ সবাই সমানভাবে দায়ী।

বিশেষ অতিথি জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি মাহমুদল হক রুবেল বলেন,মেধাবীরা দিনদিন রাজনীতি বিমুখ হয়ে যাচ্ছে। নীতি নির্ধারকদের এ ব্যাপারে নতুন করে ভাবতে হবে। ছাত্র রাজনীতিতে গুণগত পরিবর্তন আনতে হলে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ছাত্র সংসদ নির্বাচন চালু করতে হবে।

শেরপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. এ.কে.এম রিয়াজুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্যানেল আলোচক ছিলেন ডাঃ সেকান্দর আলী কলেজের অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম মুকুল, জেলা জজকোর্টের সাবেক পিপি বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ বাদল, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফখরুল মজিদ খোকনসহ অাওয়ামীলীগ বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ।

অন্যান্যের মাঝে গোলটেবিল বৈঠকে বক্তব্য রাখেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান শামীম আরা, শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ দত্ত, সাবেক ভারপ্রাপ্ত পৌরমেয়র অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হাতেম আলী, এমদাদুল হক মাস্টার, প্রভাষক মামুনুর রশিদ পলাশ, এস এম শহীদুল ইসলাম, শেরপুর প্রেসক্লাবেরর সাধারণ সম্পাদক সাবিহা জামান শাপলা, সোহেল রানা প্রমুখ।ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের রাজনৈতিক ফেলো নাসরিন রহমান, শওকত হোসেন ও অকুল চৌধুরীর যৌথ সঞ্চালনায় গোলটেবিল বৈঠকে জেলা আওয়ামী ও বিএনপি এবং সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের ৫০ জন নেতা, সাংবাদিক ও নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন।

মন্তব্য করুন