রাসেল পাঠান রাজিবসহ আসামীদের গ্রেফতারের দাবী জানান-মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল

0
2352
বিক্ষোভ মিছিল করেন জেলা সেচ্ছাসেবক লীগ

স্টাফ রিপোটার : মাসুমের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতার বিরুদ্ধে ও মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে আজ সকালে পুলিশের ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি করেছে জেলা সেচ্ছাসেবকলীগ।

আজ সোমবার বেলা ১১টার দিকে বিক্ষোভ মিছিল ডিআইজি অফিস ঘেরাও করেছেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ । জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল গণি পরিচালনায় বিক্ষোভ মিছিল পুর্বে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় রেঞ্জ ডি-আইজি অফিস ঘেরাও করে রাস্তা বন্ধ করে বিক্ষাভ কারীরা।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল বক্তৃতা করছে

বিক্ষোভ সমাবেশে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য কালে এড.মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, রাসেল পাঠান চা খাওয়ার কথা বলে মাসুমকে পার্কে নিয়ে গিয়ে ঠান্ড মাথায় খুন করার উদ্দেশ্যে নিয়ে যায়। রাসেল পাঠানের নির্দেশে রাজিবসহ বাকী আসামীরা মাসুমকে এলাপাথারি কুপিয়ে আহত করে ফেলে চলে যান।

তিনি প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করবেন না। আপনারা কোন মন্ত্রী ফোনে আসামী গ্রেফতার করবেন নাহ এটি হয়না। আজ যদি সিলভার ক্যাসেলের ভাঙ্গার সঠিক বিচার করতেন তাহলে আজ মাসুমকে কুপানোর মত সাহস পেতনা সন্ত্রাসীদল। আওয়ামীলীগে সন্ত্রাসী ক্যাডারদের প্রয়োজন নেই। রাসেল পাঠান রাজিবসহ আসামীদের গ্রেফতারের দাবী জানান

অ্যাডভোকেট নুরুজ্জামান খোকন বলেন, মাসুমের ওপর হামলাকারীরা এখনো পুলিশের ধরা-ছোঁয়ার বাইরে রয়েছে। এমনকি উল্টো আহত মাসুমের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা হয়েছে। মামলাটি অনতি বিলম্বে সুষ্ঠ তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নিয়ে প্রত্যাহারের দাবী জানান।

রেঞ্জ ডি-আইজি স্বারক লিপি প্রদান

তিনি আরো বলেন, রাসেল পাঠানসহ আসামীরা ময়মনসিংহ শহরে প্রকাশ্যে অবস্থান করে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। আসামীরা পুলিশের নাকের ডগায় সাংবাদিক সম্মেলন, মিছিল, মিটিং, কেক কেটে একে অপরের মুখে তুলে দিয়ে পৈষাচিক উল্লাস প্রকাশ করে ফেইস বুকে ছবি সহ স্টাটাস দিয়েছে। যা আমরা সহ ময়মনসিংহবাসী,এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সারা বিশ্বেও কোটি কোটি মানুষের ত্রীব ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। আসামীগণ পৈশাচিক খেলায় মত্ত হয়ে খুলনা নিবাসী সন্ত্রাসী সানু মিয়ার মাধ্যমে মাসুমের বিরুদ্ধে উল্টো মিথ্যা মামলা দিয়েছে। আসামীদের ৪৮ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতার করা না হলে আন্দোলনের হুমকি দেওয়া হয়।বিক্ষোভ মিছিলটি শেষ করেঅনুলিপি প্রদান করা হয়।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন,জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক উত্তম চক্রবর্তী রকেট,মহানগর সেচ্ছাসেবকলীগের আহŸায়ক মোফাখকর খোকন ,সেচ্ছাসেবক লীগের সম্পাদক মো: নাছিম,আব্দুল আওয়াল মিন্টু,শহর ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন আরিফ,সাগর,ছাত্রলীগ নেতা অনি,আলমগীর হোসেনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এদিকে, গত ৩১ অক্টোবর ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগের একাংশের নেতা-কর্মীদের দায়ের কোপে মারাত্মক আহত হন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম-আহŸায়ক শেখ মাসুম। তাকে প্রথমে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে ঢাকার জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) ভর্তি করা হয়।

জেলা পুলিশ সুপার কাছে স্বালক লিপি

এ ঘটনায় নগরীর জয়নুল উদ্যান এলাকার সিসিটিভির ফুটেজ দেখে মাসুমের বড় ভাই নাজমুল হাসান জনি বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এতে মহানগর যুবলীগের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম-আহŸায়ক রাসেল পাঠানসহ ২০ জনকে আসামি করা হয়।
মামলার আসামিদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে আন্দোলনে নামেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট নুরুজ্জামান খোকনের নেতৃত্বে নেতা-কর্মীরা। তারা কয়েক দফা বিােভ মিছিলও করেন।

এ বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার নুরুল ইসলাম পিপিএম,বিপিএম বলেন, ৩ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাদ বাকি আসামিদের গ্রেফতারেও পুলিশের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

 

 

মন্তব্য করুন