ময়মনসিংহ ডিজিটাল রুপকার হিসাবে খ্যাত-মেয়র ইকরামুল হক টিটু

0
2296
ময়মনসিংহ ডিজিটাল রুপকার হিসাবে খ্যাত-মেয়র ইকরামুল হক টিটু

জাহিদুল ইসলাম জীবন : মেয়র ইকরামুল হক টিটু ডিজিটাল ময়মনসিংহ গড়ার আধুনিকতার ছোঁয়ায় সৌন্দর্য বর্ধনের মাধ্যমে বদলে যাচ্ছে শিক্ষা,সংস্কৃতির নগরী। ইতিহাস, ঐতিহ্য আর ঐশ্বর্যে মাখা ময়মনসিংহ শহরটি যেন মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে এখন। মানুষের জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে এ শহরের আধুনিকতা ছোয়া পেয়েছে।

‘মানুষ বেঁচে থাকে তাঁর কর্মে, প্রতিষ্ঠান টিকে থাকে তার ধর্মে’ -সাক্ষাৎ করতে আসা এক ভক্ত-পন্ডিতকে উপলক্ষ করে কথাটি বলেছিলেন মহাকবি গেট্যে। বস্তু তাঁর কথাটির মমার্থ হলো- একজন মানুষ যত বেশি ভালো কাজ করবে, যত বেশি পরিমাণে ভালোর সঙ্গে বসবাস হবে একটি মানবআত্মার; তত বেশি দীর্ঘজীবি হবে সেই মানুষটি তিনি হলে বর্তমানে ময়মনসিংহ গৌরব পৌর মেয়র ইকরামুল হক টিটু। ময়মনসিংহ নগরীর মানুষ তার উন্নয়নের কাজের জন্য যুগ যুগ ধরে মানুষ মনে রাখবে। তাঁকে শ্রদ্ধাভরে বলবে এবং আলোচনা করবে-সে মানুষটি হলো ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র ইকরামুল হক টিটু।

সে অত্যান্ত একজন ভাল মানুষ বলে আখ্যায়িত করেন নগরির জনগণ। জনপ্রতিনিধি হওয়া এমন একটি ক্যারিয়ার,একক ইচ্ছায় যেটা হওয়া সম্ভব না এটি সবার জানা। জনপ্রতিনিধি হওয়ার জন্য সৃষ্টিকর্তার মনোনয়নের সাথে জনগণের মনোনয়নের প্রয়োজন হয়। জনসাধারণের মনোনয়ন ছাড়া জনপ্রতিনিধি হওয়া যায় না। ময়মনসিংহ পৌরএলাকার জনগণ তাদের সমস্যা সমাধানের জন্য জনপ্রতিনিধি হিসেবে তাকে দায়িত্ব প্রদান করার ইচ্ছা পোষণ করেছে,জনপ্রতিনিধি হয়েছে মেয়র টিটু। আগামীতে সিটি নির্বাচনে সে জনগণের রায় পাবে এটি বিশ্বাস করে সবাই।

নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত পৌর এলাকায় অনেক উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে। ৫০ বছর পিছিয়ে থাকা কাজ গুলো ৫ বছরে করা হয়তো কারো পক্ষে সম্ভব না। কিন্তু মেয়র টিটু চ্যালেঞ্জ করে হয়তো দেখিয়ে দিয়েছে উন্নয়ন কিভাবে হয়। এই কাজ গুলো ময়মনসিংহ সাধারণ জনগণ বিশেষ করে গরিব, আসহায় মানুষের মধ্য মণি হয়ে দাড়িয়েছে। কারন একটি, তার কাছে যে কোন কাজে আসলে বিচক্ষণ একটি হাসি দিয়ে জয় করে নেই সব মানুষের মন। ইচ্ছা থাকলে সব কিছু করা যায়। এটি প্রমাণ। ময়মনসিংহ জলাবদ্ধতা নগরীর দীর্ঘদিনের একটি সমস্যা ছিল। এই সমস্যা নিরসনের জন্য সর্বপ্রথম ময়মনসিংহের পৌরএলাকায় ফুটপাতসহ এ পর্যন্ত আনুমানিক ৫০-৬০ কিলোমিটার নতুন আরসিসি ড্রেন নির্মাণ করেছে। যার ফলে এলাকার ড্রেইনেজ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন এসেছে। এখন আর রাস্তায় পানি উঠলে ঘন্টার পর ঘন্টা জমে থাকেনা। নিমেষেই পানি নেমে যায়। সম্পূর্ণভাবে এই সমস্যার সমাধানের জন্য আগামীতে আরো নতুন নতুন ড্রেন নির্মাণ হবে। পানির পর্যাপ্ত সরবরাহ ছিল না ময়মনসিংহে। পর্যাপ্ত পরিমাণ বিশুদ্ধ ও সুপেয় পানি সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য দুটি ওভারহেড পানির ট্যাংক, নতুন নতুন পাইপলাইন সংযোগ স্থাপন এবং ১২টি নতুন পাম্প বসানো হয়েছে। নতুন নতুন করে রাস্তা নির্মাণ হচ্ছে। নগরবাসীর চিত্ত বিনোদনের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে ঐতিহ্যবাহী জয়নুল আবেদীন পার্ক ও বিপিন পাক্রের সংস্কারসহ কিছু বিনোদনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে এবং নগরীর টাউন হল অডিটরিয়ামের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ইতোমধ্যে শহরের গুরুত্বপূর্ণ চরপাড়া মোড়ে বক্স কালভার্ট নির্মাণ ও মোড় প্রশস্থ করা হয়েছে।

তাইতো বর্তমান সময়ে ময়মনসিংহ সিটিতে তিনিই একমাত্র জনপ্রিয় ও হেভিওয়েট নেতা যার মেধা ও নেতৃত্বের বলয়ে আগামীদিনে ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনে তাকে চাই ময়মনসিংহ বাসী। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে বেছে নিয়েছে বলে পত্র-পত্রিকায় এসেছে। মানুষ মনে করে, একমাত্র মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে পারে একজন তিনি হলেন মেয়র টিটু। তার কোন বিকল্প নেই ময়মনসিংহে। তাই আগামী নির্বাচনে তাকে ময়মনসিংহ সাধারণ জনগণ নির্বাচন ভোট দিয়ে তাকে সাধরে গ্রহণ করবে। এই আশায় বুক বেধে আছে ময়মনসিংহ বাসী। গরিব, আসহায় মানুষ যাকে কাছে পাই তিনি হলে পৌর মেয়র ইকরামুল হক টিটু।

মন্তব্য করুন