ময়মনসিংহে ডিবির অভিযানে জসিম হত্যার রহস্য উদঘাটন॥ ঘাতক সুজনের আদালতে স্বীকারোক্তি

0
199

ময়মনসিংহের ফুলপুরে জসিম উদ্দিন হত্যার রহস্য উদঘাটন হয়েছে। ঘাতক সুজন মিয়া গতকাল মঙ্গলবার তার নিজের জড়িত থাকাসহ হত্যাকান্ডে জড়িত অন্যান্যদের নাম প্রকাশ করে আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছে। পাওনা টাকার বিরোধে জসিম উদ্দিন নামের যুবককে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয়। ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) সোমবার রাতে তাকে ময়মনসিংহ সদরের চুরখাই বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে।

ডিবির ওসি শাহ কামাল আকন্দ জানান, গত ১০ জানুয়ারি রাতে ফুলপুরের ধীতপুর (গদা) গ্রামের মিয়াজ উদ্দিনের ছেলে জসিম উদ্দিনকে বাড়ি থেকে কৌশলে অজ্ঞাতনামারা ডেকে ফুলপুরের আমনকুড়া বিলের একটি ফিসারীতে নিয়ে যায়। ঐ রাতেই রাতে জসিম উদ্দিনের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে হত্যা নিশ্চিত করে ফেলে যায় ঘাতকরা। এ ঘটনায় অজ্ঞাতদের বিরুদ্ধে ফুলপুর থানায় মামলা নং-০৪, তারিখ-১২/০১/২০২১ ইং, ধারা-৩০২/২০১/৩৪ পেনাল কোড) দায়ের হয়।

ওসি আরো জানান, গুরুত্বপূর্ণ এ মামলাটির রহস্য উদঘাটন এবং ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারে পুলিশ সুপার আহমার উজ্জামান ডিবি পুলিশকে নির্দেশ দেয়। পরবর্তীতে তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি’র এসআই পরিমল চন্দ্র সরকার মামলা তদন্তকালে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় হত্যার রহস্য উদঘাটন এবং ঘাতকের অবস্থান নিশ্চিত করে।
সোমবার রাতে এসআই পরিমল চন্দ্র সরকার সহ অন্যান্যরা অভিযান পরিচালনা করে হত্যাকারী সুজন মিয়াকে চুরখাই বাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। সে ফুলপুরের ধীতপুর গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে। পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে ঘাতক সুজন মিয়া হত্যার দায় স্বীকার করেছে। তাকে মঙ্গলবার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ৬নং আমলী আদালতে পাঠানো হলে, সে লোমহর্ষক হত্যাকান্ডের বর্ণনা দিয়ে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে। এসআই পরিমল জানান, এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত অন্যান্যরে গ্রেফতারের চেষ্ঠা চলছে।

মন্তব্য করুন