ময়মনসিংহে অটো চালক হত্যাকান্ডের ২৪ ঘন্টার মধ্যে তিন ঘাতক গ্রেফতার-আদালতে দোষ স্বীকার

0
621
ময়মনসিংহে অটো চালক রুকু মিয়া(৪২) হত্যার ২৪ ঘন্টার মধ্যে হত্যাকান্ডে জড়িত তিন গাতককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদেরকে মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হলে তারা হত্যার দায় স্বিকার করে জবানবন্দি দিয়েছে। ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানাধীন বাড়েরা নিযামনগর এলাকায় রবিবার এই হত্যাকান্ড ঘটে।
গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন,গোয়াইলকান্দি রাজু মিয়ার ছেলে বাদশা মিয়া(৩২), আকুয়া চুকাইতলা রং মিস্ত্রি আইনুল ইসলাম ছেলে আসিফ ওরফে বাবু(২৫), আকুয়া ওয়ারলেস গেইটের লাল মিয়া ছেলে মো: নিলু মিয়া(৫৫)।
মামলা সুত্র ও পুলিশ জানায়, গত ইং-৩০/০৫/২০২১ তারিখ দুপুরে কোতোয়ালী মডেল থানাধীন বাড়েরা নিযামনগর এলাকায় রুকু (৪২),মৃতদেহ পরে থাকে একটি ফসলি জমিতে। মৃত রুকু আকুয়া এলাকায় ভাড়ায় অটো রিস্কা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতো। পরিবার খোজাখুজির পর এক পয়ায়ে শুনতে পারে একটি ফসলি জমিতে অজ্ঞাত ব্যাক্তির লাশ পরে আছে। দ্রুত সময়ে গিয়ে তারা লাশ শনাক্ত করে।
পরবর্তীতে গত ইং-৩০/০৫/২০২১ খ্রিঃ তারিখ দুপুরে কোতোয়ালী মডেল থানাধীন বাড়েরা নিযামনগর এলাকায় অনুমান ৪০ বছর বয়সের এক অজ্ঞাতনামা (পুরুষ) লাশ পাওয়া যায়। ২/৩ ঘন্টা পর লাশ সনাক্ত হলেও নেই কোন ক্লু, কে বা কারা কোন উদ্দেশ্যে, কিভাবে হত্যা করলো সে বিষয়ে কোন ক্লু পাওয়া যাচ্ছে না, পাওয়া যাচ্ছে না কোন আলামত।
টিম কোতোয়ালীর সামনে অন্ধকার রাস্তা কোন আলোর দিশা নেই, কিন্তু সহজে হেরে গেলে চলবে না। শুরু হলো শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান, রাত পেরিয়ে ভোর, দুপুর গড়িয়ে যায় টিম কোতোয়ালীর ঘুম খাওয়া দাওয়া যেন হারাম। অবশেষে শ্বাসরুদ্ধকর অভিযানে ২৪ ঘন্টার মধ্যেই সফল টিম কোতোয়ালী। হত্যাকান্ডে জড়িত ৩ জন আসামীই গ্রেফতার এবং হত্যার ঘটনার রহস্য উদঘাটন। উদ্ধার চোরাইকৃত রিক্সার ব্যাটারী।
অভিযানের নেতৃত্বদেন কোতোয়ালী মডেল থানার সদর সার্কেল ও
পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) ফারুক, এসআই(নিঃ) মিনহাজ, এসআই(নিঃ) আনোয়ার হোসেন অভিযান করে তাদের গ্রেফতার করে।
পুলিশ পরিদর্শক ফারুক জানান, মামলা নয়, হত্যার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশ সুপারের নির্দেশে দ্রুত অভিযান চালিয়ে একজনকে গ্রেফতার করি। তার কথা মতো আরো দুই জনকে গ্রেফতার করি। গ্রেফতারকৃতদেরকে শনিবার সন্ধ্যায় আদালতে পাঠানো হয়েছে। তারা উভয়েই হত্যার দায় স্বিকার করে আদালতে জবানবন্ধি দিয়েছে। হত্যাকান্ডে আরো কেউ জড়িত রয়েছে কিনা এ নিয়ে তদন্ত চলছে।

মন্তব্য করুন