মুকুল নিকেতন স্কুলের রেক্ট্রর ছেলে অনুপ দোকান মালিক সভাপতিকে মারধর

0
4027


স্টাফ রিপোটার : আজ সোমবার সকালে আনুমানিক ১২টা দিকে ময়মনসিংহ ট্যাংপট্টি মার্কেট দোকান মালিকদের সাথে মুকুল নিকেতন স্কুলের আনুপ ও শিক্ষার্থীদের সাথে হাতাহাতি ঘটনা ঘটেছে।

জানাযায়, মার্কেট সভাপতি আলহাজ্ব আকরাম আলী মুকুল নিকেতন স্কুলের ২নং হোস্টেলে বাহিরে একটি চেয়ারে বসে ছিল। পিছন থেকে হঠাৎ করে মুকুল নিকেতন স্কুলের রেক্টর আমীর আহম্মেদ চৌধুরী রতন ছেলে তানজিব আমীর অনু স্কুলের হোস্টেলে থাকা শিক্ষাথীদের নিয়ে তার উপর হামলা চালায়। এ নিয়ে দোকান মালিকদের সাথে অনুপসহ ছাত্রদের সাথে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে ট্যাংক পট্রির সকল দোকান মালিকরা তীব্র প্রতিবাদ জানান এবং অনুপের বিচার দাবী করেন।

এ ঘটনায় ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইউসুফখান পাঠান ব্যবসায়ী মালিক সমিতি উদ্দেশ্যে বলেন, আমাদের ইজ্জত আমাদের স্কুলের ইজ্জত। এ ঘটনায় স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকা বিব্রত। স্কুলের হোস্টেলের ভিতরে কোন ছাত্ররা থাকতে পারবে না। আগামীকাল ১২টার মধ্যে স্কুলের হোস্টেল খালি করে দিতে হবে বলে প্রধান শিক্ষক বলেন। যে সকল শিক্ষার্থীদের শুধু মাত্র পরিক্ষা দিচ্ছে তারা হোস্টেলে থাকবে। স্কুলের সভাপতি আমিনুল হক শামিম আসলে ২ দিন পর এই ঘটনার বিচার হবে বলে আশ্বাস প্রদান করেন।

দোকান মালিকরা তার কথায় সন্তুষ্ট্র না হয়ে স্কুলের ২ গেইটে অবস্থান নেই। পরিস্থিতি শান্তনা করার জন্য একাধিক পুলিশ স্কুলের ভিতরে ও বাহিরে অবস্থান করেন। পরে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের গাড়িতে রেক্টর আামীর আহম্মেদ চৌধুরী রতন ও তার ছেলে তানজিব আমীর অনুপকে পুলিশ প্রটোকল দিয়ে বাড়ি পৌছে দেওয়া হয়।
এঘটনায় ব্যবসায়ী মালিক সমিতির লোকজন আরো উত্তেজিত হয়ে পড়তে দেখাযায়। পরে ব্যবসায়ী মলিক সমিতি সভাপতি আকরাম বাদী হয়ে থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ দেন বলে জানান।  পরে ৫-৬ ঘন্টা সকল দোকান বন্ধ রাখা হয় ।


এই ঘটনায় রেক্টর আমীর আহম্মেদ চৌধুরী রতন ও তার ছেলে অনুপের সাথে কথা বললে তারা বলেন, এটি একটি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন ঘটনা। এখানে কেহ কারো আঘাত করেনি।

এঘটনায় একজন পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন