বিএনপি ক্ষমতায় এলে ৩০ লাখ মানুষ খুন হবে: রাশেদ খান মেনন

0
635

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, যুদ্ধাপরাধী, জামায়াত-শিবির, তাদের আশ্রয়-প্রশ্রয়কারী বিএনপি সন্ত্রাসীদের নির্মূল করতে হবে। তারা, তাদের রাজনৈতিক দল যদি কোনো অবস্থায় ক্ষমতায় আসতে পারে তাহলে ৩০ লাখ মানুষ হত্যার শিকার হবে। দেশে প্রগতিশীল মুক্তমনা মানুষদের খুন করা হবে।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রক্রিয়া ও অগ্রগতি বিষয়ে তিনি বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও ফাঁসি দিতে পেরেছি এটাতেই যদি ভাবি যুদ্ধে জয়ী হয়ে গেছি তা ভুল হবে। রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে সাম্যবাদী দলের ৫০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, সমাজতন্ত্র কায়েমের লক্ষে এই উপমহাদেশে দীর্ঘ দিন আগে সমাজতান্ত্রিক ভাবধারায় সাম্যবাদী দলের যাত্রা। লেনিনের মতাদর্শে এ দেশে মানুষ জাতীয় মুক্তির লড়াইয়ে অনুপ্রাণিত হয়েছিল। মেনন বলেন, বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে লেখা সংবিধানের চারটি মূলনীতির একটি হলো সমাজতন্ত্র। যা আমরা নিজেরা লিখে তা আজ বাস্তবায়ন হচ্ছে না। নিজেরা লিখে তা আমরা বাস্তবায়ন করতে পারি নাই। সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে না পারলে সামনে আরও কঠিন সময় আসবে।

সাম্প্রদায়িক শক্তিকে ক্ষমতায় আসতে দিলে সামনে বিপদ আছে দাবি করে মেনন বলেন, ‘বাংলাদেশে ৩ কোটি মানুষ এখনও দরিদ্র। অনেক মানুষ হতদরিদ্র। শুধু উন্নয়ন নয়, জঙ্গি-সন্ত্রাসবাদ, জামায়াত-শিবিরকে উৎখাত করতে না পারলে, তাদের সঙ্গে লড়াইয়ে জয়ী হতে না পারলে সামনে আরও কঠিন সময় আসবে।

তিনি বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয় দেশ এবং ২০৪১ সালে আধুনিক একটি দেশ হবে বাংলাদেশ। কিন্তু আমি বলতে চাই, এসব উন্নয়ন কার জন্য? সাম্যবাদী দলের সভাপতি দিলীপ বড়ুয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, জাসদ (একাংশ) সভাপতি শরীফ নূরুল আম্বিয়া, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (একাংশ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের আহ্বায়ক ওয়াজেদুল ইসলাম প্রমুখ।

মন্তব্য করুন