টিএসআই আশরাফুলের বদলি নিয়ে পরাজয়- মাদক ব্যবসায়ীদের বিজয়..?

0
1733

স্টাফ রিপোটার : ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানার যোগদানের পর এসআই আশরাফুল আলম কেওয়াট খালী স্কুলছাত্র হত্যা মামলা আসামী গ্রেফতার করে উর্দ্ধতন পুলিশ কর্মকর্তাদের চোখে পড়েন।

১নং ফাড়িতে যোগদান করেই তিনি এসআই আশরাফুল থেকে হয়ে গেলেন টিএসআই আশরাফুল। যোগদানের পর থেকে তার নেতৃত্বে শুরু হয় ১নং ফাড়ি এলাকায় বিভিন্ন ধরনের অপরাধীদের বিরুদ্ধে অভিযান। এছাড়া থানার সার্বিক আইন-শৃংখলার উন্নয়নে বিভিন্ন এলাকায় উঠান বৈঠক, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাদকবিরোধী সচেতনতামূলক সভা, অধিক হারে গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিল, নাম্বার বিহীন মোটরসাইকেল আটক করে সরকারি রাজস্ব আদায় করেন। বিশেষ করে মাদক ব্যাবসায়ীদের রিস্কা ও মহিলাদের সেলাই মেশিন দিয়ে ভাল হওয়ার স্বার্থে বিশেষ অবদান ছিল তার। এ ছাড়াও তিনি ফেসবুক আইডির মাধ্যমে বাসা-বাড়ির নিরাপত্তায় করণীয় প্রসঙ্গে সতর্কবার্তা ও অপরাধ-অপরাধীদের ব্যাপারে নির্ভয়ে তথ্য দিতে বলতেন। এর সুফল ১নং ফাড়ি টিএসআই আশরাফুল আলম পেলেন। কালীবাড়িতে ৭ জঙ্গী গ্রেফতার করে রাষ্ট্রিয় পুরোস্কারো কথা বিভিন্ন মিডিয়ায় আসে। তার বদলি পুরোস্কার পেলেন তিনি। ১নং ফাড়ি এলাকায় ব্যাপক দক্ষতার সাথে মাদক ও আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রনে ভূমিকা পালন করেছেন।

৭ জঙ্গি গ্রেফতারের সময় ডি-আইজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ-আল মামুন সাথে একান্ত কথা বলছে টি এসআই আশরাফুল আলম সাথে

এছাড়া শহরে চাঞ্চল্যকর ৫টি হত্যা মামলা রহস্য উৎঘাটন করেন টিএসআই আশরাফুল। সৈয়দ নজরুল কলেজ এর ছাত্র আলোচিত বিল্লাল মার্ডার এর মুল আসামী দের গ্রেফতার করেন ১নং ফাড়ি বাঘা বাঘা মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার করেন তিনি। এসব ধরা ছিল তার অপরাধ?

যখন তিনি রেঞ্জ ডি-আইজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুনের দিক নির্দেশনা ও জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম নির্দেশে মাদক অভিযানে নামে তখন নামধারী কিছু সাংবাদিক ও মাদক ব্যবসায়ীরা তার নামে বেনামে চিঠি দেওয়া শুরু করে। ১নং ফাড়ি এলাকায় মাদকের স্পট গুলো থেকে মাদক ব্যবসায়ীদের মদদ দিয়ে একটি স্বার্থনেশী মহল হাতিয়ে নিচ্ছিল অর্থ কিন্তু টিএসআই আশরাফুলের কারণে হঠাৎ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে মাদক ব্যবসায়ীদের বাণিজ্য।
পাশাপাশি কমে যাচ্ছে মদদ দাতাদের অর্থ তাই শুরু হচ্ছে অপপ্রচার। ঐসমস্ত মাদক ব্যবসায়ীদের মাদকসহ আটক করে মামলা দেওয়াই ছিল টিএসআই আশরাফুলের অপরাধ? তাই টিএসআই আশরাফুলের বদলি করতে হবে। হলো টিএসআই আশরাফুল বদলি। মাদক ব্যবসায়ীদের জয় আর আশরাফুলের পরাজয়। গোটা পুলিশের হার হলো। এখন মনে হয় পুলিশের থেকে মাদক ব্যবসায়ীর হাত বড়।

১নং ফাড়ি এলাকার মাদক ব্যবসায়ীদের ভাল পথে ফিরানোর জন্য শেলাই মেশিন প্রদান

প্রশাসনের সুশৃঙ্খল নিয়ম-কানুন মেনে দেশের সেবা তথা দেশের মানুষের সেবা করার ব্রত নিয়েই ১ং ফাড়ি টিএসআই আশরাফুল আলমের অর্পিত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছিলেন। একজন পুলিশের ভাল কাজ করা কি তাহলে অপরাধ? কেন বদলি করা হলো টিএসআই আশরাফুল কে? হয়তো এ প্রশ্নের জবাব আমরা কখনো পাবনা। সত্যের জয় হলোনা মিথ্যার জয় হলো।

সুত্র থেকে জানাযায়, ময়মনসিংহ কিছুদিন পূর্বে এক মাদক সম্মাট পুলিশ বদলি করার হুমকি দেয়। এমনকি জেলা পুলিশ সুপার বদলি করার হুমকি দিত ওই মাদক সম্মাট। মাদক ব্যবসায়ীদের হাত অনেক লম্বা। কিছুদিন পুর্বে এক রাজনৈতিক নেতার কথায় এক ওসিকে বদলি করা হয়ে ছিল। এই হলো পুলিশ?

এদিকে, খুব অল্প দিনের মধ্যেই টিএসআই আশরাফুল ময়মনসিংহ মানুষের মন জয় করে ফেলছেন। কিছুদিন তিনি এমন কিছু করে বসলেন যে তার বদলির খবরে ময়মনসিংহের মানুষ তার জন্য হায়-হতাশ করছেন। আবার কেহ কেহ বলেছেন আবারো শুরু হবে গাঙ্গিনারপর ছিনতাই, ১নং ফাড়ি এলাকায় মাদক বিক্রি। তার বদলির আদেশ বাতিলের জন্য কেহ কেহ সুপারিশ করছেন।

শিশু ধর্ষণ কারী গ্রেফতার করেন

এ বদলিতে টি-এসআই আশরাফুল অখুশি নয়। কারণ তিনি ঢাকায় বদলি হওয়ার জন্য হয়তো চেষ্টাও করে থাকতে পারেন। কিছুদিনে তিনি যে দূরবর্তী একটি জেলার সকল স্তরের মানুষের মনে স্থান করে নিতে পেরেছেন সেটা বোঝা যায়। ইতিপূর্বেও এ জেলায় অনেক পুলিশ অফিসার কাজ করেছেন। কিন্তু পূর্ববর্তী সবার চেয়ে আশরাফুলের চরিত্রে এমন কিছু আলাদা ও অনন্য বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা তাকে ময়মনসিংহের মানুষের কাছে জনপ্রিয় করে তুলেছে।

মাঠ পর্যায়ে কাজ করতে গিয়ে আমি অনুভব করেছি, সাধারণ মানুষের দুঃখ-কষ্ট লাঘবের চেষ্টার পাশাপাশি যদি সততা ও নিষ্ঠার গুণটি ধরে রাখা যায়, পুলিশ জনগণের জন্য জরুরি সেবা দিয়ে থাকে। এ সেবা অনেক ক্ষেত্রেই বিকল্পহীন। সরকারি ব্যবস্থার বাইরে অধিকাংশ পুলিশি সেবা আদায় করার কোন উপায় নেই। তাই সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে পুলিশের কৃপণতা জনগণকে দুর্ভোগের মধ্যে ফেলে। অপরপক্ষে পুলিশ সদস্যদের সামান্য উদারতাই মানুষকে অতিমাত্রায় সন্তুষ্ট করে তোলে। এক্ষেত্রে ভাল করার প্রবণতা যে সহজেই মানুষের অনুমোদন লাভ করে।

ময়মনসিংহ কালীবাড়ি থেকে ৭ জঙ্গী গ্রেফতার, রবিন হত্যা মামলার আসামী গ্রেফতার, কেওয়াটখালী ছাত্র হত্যা মামলার আসামী গ্রেফতার, সিটি কলোজিয়াট স্কুলের সামনে হত্যা মামলার আসামী গ্রেফতার কাজে বেশ সফলতা রয়েছে তার। মাদক সম্মাট ও সমাজ্ঞীদের গ্রেফতারসহ অসংখ্য মাদক উদ্ধার করেছেন তিনি । ১২ নারী ছিনতাই কারী গ্রেফতার। ঈদুল ফিতরের ঈদে আইনশৃঙ্খলা ছিল দেখার মত।

একজন পুলিশ কর্মকর্তা বদলি হবে এটা স্বাভাবিক। আমরা বদলি পক্ষে। যারা যুগ যুগ ধরে এ জেলায় থাকছে তাদের বদলি করা হয় না কেন?

মন্তব্য করুন