কথিত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কদ্দুসের বিরুদ্ধে থানায় মামলা

0
1551

ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার ১০নং কালাদহ ইউনিয়নের বিদ্যানন্দ ইয়াদ আলীর মোড় এলাকার কথিত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কদ্দুসের বিরুদ্ধে প্রতিবেশি নিরীহ ভ্যানচালক মকবুল হোসেন কে মামলা তুলে নিতে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করায় থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। গত শনিবার (২ডিসেম্বর) থানায় অভিযোগটি দায়ের করেন ভ্যানচালক মকবুল হোসেন।

অভিযোগ থেকে জানা যায়, প্রায় ২০বছর পূর্বে বিদ্যানন্দ মৌজায় সাফ কাওলা দলিল মূলে ১৮কাঠা জমি বিক্রি করে মৃত ফরহাদ আলীর পুত্র আ: কদ্দুস। জমির দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সম্প্রতি আ: কদ্দুস সেই জমি বেদখল দেয় তাতে শান্তি ভঙ্গের আশঙ্কায় ৩১.০৫.২০১৭ইং খ্রি. বিজ্ঞ অতি. জেলা ম্যাজি: আদালতে ফৌ: কা: বি: আইনে ১৪৪ধারা মামলা দায়ের করেন। আদালত ফুলবাড়ীয়া সহকারী কমিশনার (ভূমি) কে সরেজমিন তদন্ত প্রতিবেদন দেয়ার আদেশ দেন।

ঐ সময়কার (অ. দা.) সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার লীরা তরফদার তাঁর অধিনস্থ উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার দিয়ে সরেজমিন তদন্ত করান, উভয় পক্ষ নাশিলী ভূমির দখল দাবী করেন। আসামী পক্ষের কোন কাগজপত্র ও প্রমানপত্র না থাকায় মকবুল হোসেনকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার চেষ্টা করছে।

শুক্রবার ১ ডিসেম্বর রাত ১০টার দিকে ইয়াদ মোড় হতে বাড়ীতে যাবার পথে মৃত ফরহাদ আলীর পুত্র মো: আব্দুল কদ্দুস, মৃত ফজর আলীর পুত্র আব্দুস সালাম গংরা হুক্কার দিয়ে ১৪৪ধারা তুলে নিতে চাপ প্রয়োগ করার চেষ্টা করে। নতুবা ১৫লাখ টাকার চাঁদা দেয়ার হুমকি প্রদান করে।

চলতি বছরের ২৬ফেব্রুয়ারি মাসে একই ইউনিয়নের বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: হাবিবুর রহমান ও মো: এমদাদুল্লাহ স্বাক্ষরিত উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কমিটি বরাবর দাখিলকৃত এক চিঠি থেকে জানা যায়, আব্দুল কদ্দুস একজন ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা কেননা বিদ্যানন্দ ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার ভর্তি রেজি: অনুযায়ী তার জন্ম তারিখ ১৯৬৯সালে।

২০১৪সালে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে সে জামুকা থেকে মুক্তিযোদ্ধার তালিকাভুক্ত হয়। মুক্তিযোদ্ধার দাপটে সে নিজের বিক্রিত জমি বেদখল দেন। তার পক্ষ অবলম্বন না করায় তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধপরাধীর মামলা দায়ের করেন। ০৬/০৬/২০১৫ তারিখ নিজের বাড়ীতে নিজেই আগুন দিয়ে প্রতিবেশি মকবুল হোসেনের দোষ চাপিয়ে তাকে আসামী করে মামলা দায়ের করে, যা জেলা কমান্ডের প্রতিনিধির তদন্তে বেরিয়ে এসেছে।

আ: কদ্দুস এলাকায় বলে বেড়ান আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে ৩ঘন্টা ইন্টারভিউ দিয়ে মুক্তিযোদ্ধা হয়েছি, আমাকে বাদ দেয়ার ক্ষমতা কারো নেই। সুত্র:ফুলবাড়িয়া নিউজ 24ডটকম

মন্তব্য করুন